হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়, এর ক্যাম্পাস, শিক্ষা ব্যবস্থা, ভর্তি পদ্ধতি

2
Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedInEmail this to someonePin on Pinterest

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় পৃথিবীর প্রাচীনতম একটি উচ্চশিক্ষা ও গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠান। ১৬৩৬ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেট্স’র ক্যামব্রিজে শুরু হয় বেসরকারি এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দাতা জন হার্ভার্ডের নামে বিশ্ববিদ্যালয়টির নামকরণ হয়।

সারাবিশ্বের জ্ঞানপিপাসু লোকজনের কাছে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় একটি স্বপ্ন। বর্তমানে হার্ভার্ড বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম। বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার মান, চাকরির বাজার, ইতিহাস, প্রভাব, সম্পদের প্রাচুর্য ইত্যাদি বিষয়ের বিবেচনায়ই এ অবস্থান পেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর আগেও নানা র‌্যাংকিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি বিশ্বের সেরা হিসেবে নিজেকে তুলে ধরেছিল। পদার্থবিজ্ঞানী পার্সি উইলিয়াম্স ব্রিজম্যান, সাহিত্যিক টিএস এলিয়ট, অর্থনীতিবিদ পল স্যামুয়েলসন, রসায়নবিদ রজার কর্নবার্গ, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাসহ ৭৫ জন নোবেল বিজয়ী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন।

এছাড়া মাইক্রোসফট কর্পোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গসহ আরো অনেক মহৎ ব্যক্তিরা এই প্রতিষ্ঠান থেকে তাদের জ্ঞানের ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছেন।ক্যাম্পাসহার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসটির আয়তন ২১০ একর। এছাড়াও ২১ একর মেডিকেল ক্যাম্পাস, ৩৬০ একর অ্যালসটন ক্যাম্পাসসহ চার্লস নদীর এপার ওপার মিলে বেশ বড়সর ক্যাম্পাস রয়েছে হার্ভাডের।

১১টি একাডেমিক ইউনিট, ১২টা হল, গির্জাসহ এই বিশ্ববিদ্যালয়ের রয়েছে অসংখ্য স্থাপনা। বিজনেস স্কুল এবং অ্যাটলেটিকসের সব সুবিধা নিয়ে গঠিত হার্ভার্ড স্টেডিয়ামটি অ্যালসটন এবং মেডিকেল ডেন্টাল ও পাবলিক হেলথ স্কুলটি লংউড মেডিকেল এলাকায় অবস্থিত।শিক্ষা কার্যক্রমহার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক রয়েছেন ২৩০০ জন। আন্ডার গ্রাজুয়েট, গ্রাজুয়েট, পোস্ট গ্রাজুয়েট, গবেষণাসহ বিভিন্ন পর্যায় মিলিয়ে বর্তমানে এর শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার। এখানকার বেশিরভাগ শিক্ষাই কর্মমুখী। অর্থাৎ এখান থেকে বের হয়ে যেন কেউ তার বিষয়ের কোনো একটি চাকরিতে ঠিকভাবে কাজ করতে পারে সে ব্যাপারে উপযুক্ত প্রশিক্ষণ বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই দেয়া হয়। সহ-শিক্ষা কার্যক্রমবিখ্যাত কলা মিউজিয়াম অব আর্ট এই বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করে।

প্রতিষ্ঠানটি খেলাধুলার ক্ষেত্রেও পিছিয়ে নেই। এনসিএএ ডিভিশন এবং আইভি লিগে ৪১টি কলেজিয়েট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে থাকে। প্রতিষ্ঠানটি ক্রীড়া জগতে সবসময়ই ইয়েল ইউনিভার্সিটির প্রতিদ্বন্দ্বী বলে বিবেচিত। প্রতি দুই বছর পর পর অনুষ্ঠিত অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি এবং ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির সঙ্গে খেলার জের ধরে ইয়েল এবং হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আসছে।লাইব্রেরিদ্যা হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি লাইব্রেরি সিস্টেমটির কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে উইডেনার লাইব্রেরি যা হার্ভার্ড ইয়ার্ডে অবস্থিত।

প্রতিষ্ঠানটি ৭৩টি লাইব্রেরির সমন্বয়ে গঠিত। যাতে প্রায় ১৮ মিলিয়ন অর্থাৎ ১ কোটি ৮০ লাখ বইয়ের ভলিউম সংরক্ষিত আছে। আমেরিকান লাইব্রেরি অ্যাসোসিয়েশনের সূত্র মতে, এটি আমেরিকার সর্ববৃহৎ একাডেমিক লাইব্রেরি এবং বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ লাইব্রেরি।আবাসন সুবিধাহার্ভার্ডে শিক্ষার্থীদেরকে প্রথম বছর অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে থাকতে হবে।

এরপর কেউ চাইলে বাইরে থাকতে পারে, তবে সে সংখ্যা খুবই কম। প্রথম বছরে হার্ভার্ড ইয়ার্ডে অবস্থিত ১৭টি ডরমেটরির একটিতে শিক্ষার্থীদের থাকার ব্যবস্থা হয়। প্রত্যেকটি ডরমেটরির জন্য সঙ্গেই লাইব্রেরি, অ্যাডভাইজিং স্টাফসহ বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা রয়েছে। খরচস্কলারশিপ ছাড়া হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে বছরে প্রায় ৬০ হাজার মার্কিন ডলার খরচ পড়ে।

পার্ট টাইম শিক্ষার্থীদের জন্য খরচ কিছুটা কম। এখানে জীবনযাত্রাও অনেক ব্যয়বহুল। এক্ষেত্রে অনেক সময় তাদের ক্যাম্পাসে কাজ করার সুযোগ দেয়া হয়। ডাইনিং হল, লাইব্রেরি, ল্যাবরেটরি, টিচিং অ্যাসিস্ট্যান্ট, বারটেন্ডার, স্পোর্টস রাইটার, রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্টসহ বিভিন্ন ধরনের পদে কাজের ব্যবস্থা আছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেই। এছাড়াও ক্যাম্পাসের কাছাকাছি অনেক ধরনের কাজের সুবিধা পাওয়া যায়। কিন্তু স্কলারশিপ পাওয়ার অসংখ্য সুযোগও আছে হার্ভার্ড ক্যাম্পাসে।

স্কলারশিপ পেলে বছরে খরচ পড়বে ২ হাজার ডলার। হার্ভার্ড ৬০%-এরও বেশি শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করে থাকে।আবেদন প্রক্রিয়াআন্ডার গ্রাজুয়েট পর্যায়ে লেখাপড়া করতে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের জন্য জানুয়ারির ১৫ তারিখের মধ্যে আবেদন করতে হবে। এখানকার আন্ডার গ্রাজুয়েট কোর্সগুলো ৪ বছর মেয়াদি। আবেদনকারীকে অবশ্যই স্ট্যাট ওয়ান বা অ্যাক্ট এবং অন্তত তিনটি বিষয়ের ওপর স্যাট টু পরীক্ষার ফল আবেদনপত্রের সাথে পাঠাতে হবে। ভর্তির ক্ষেত্রে ন্যূনতম কত স্কোর পেতে হবে এরকম কোনো কিছু নির্দিষ্ট করে না বলা হলেও সাধারণত দেখা যায় যে, স্যাট-এর প্রতিটি সেকশনে ৬০০ থেকে ৮০০ স্কোর প্রাপ্তরাই ভর্তির সুযোগ পায়।

এই পর্যায়ে টোফেল পরীক্ষা দেয়ার প্রয়োজন নেই।গ্রাজুয়েট পর্যায়ের ভর্তির জন্য টোফেল, জিআরই অথবা জিম্যাটের জন্য ভালোভাবে প্রস্তুতি নেওয়া উচিত। কারণ ভালো স্কোর ছাড়া এখানে ভর্তি সম্ভব নয়। পাশাপাশি শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রচুর গবেষণার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে ছাত্রজীবন থেকেই। গ্রাজুয়েশনের জন্য এখানে আলাদা আলাদা স্কুল রয়েছে। স্কুলগুলো হচ্ছে গ্রাজুয়েট স্কুল অফ আর্টস অ্যান্ড সায়েন্স, জন এফ কেনেডি স্কুল অফ গভর্নমেন্ট, হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল, হার্ভার্ড ল’ স্কুল, গ্রাজুয়েট স্কুল অফ ডিজাইন, হার্ভার্ড মেডিসিন, গ্রাজুয়েট স্কুল অফ এডুকেশন, আমেরিকান রেপারেটরি থিয়েটার ইনস্টিটিউট ফর অ্যাডভান্সড থিয়েটার ট্রেনিং। ভর্তির ক্ষেত্রে অনেক কিছু বিবেচনা করা হয়Ñ পড়ালেখার রেজাল্ট, পড়ালেখার বাইরে অন্য কোনো ক্ষেত্রে অসামান্য কোনো অবদান, কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া উচ্চ জি-ম্যাট স্কোর, সুপারিশপত্র, সংশ্লিষ্ট বিভাগ কর্তৃক নির্বাচিত বিষয়ের ওপর লেখা প্রবন্ধের উচ্চমান।

সাধারণ নিয়মে দেখা যায় যারা ক্লাসের শীর্ষ ১০ থেকে ১৫ জনের মধ্যে থাকেন তাদের ক্ষেত্রেই এখানে ভর্তি হওয়ার সুযোগটা বেশি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে একটি সুপারিশপত্র দিতে হয়। এমন একজন শিক্ষককে দিয়ে এই সুপারিশপত্র লেখাতে হবে যিনি আবেদনকারীকে বেশ ভালোভাবে চেনেন। সুপারিশপত্রে পড়ালেখার ক্ষেত্রে আবেদনকারীর গুণাগুণ থেকে শুরু করে পড়ালেখার বাইরে তার বিভিন্ন আগ্রহ এবং তার বৈশিষ্ট্যসমূহ সম্পর্কে বলবেন।

বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের মাস্টার্স বা পিএইচডিতে আবেদন করলে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। জার্নালে লেখা ছাপাতে হবে আর থাকতে হবে পরিশ্রম এবং ইচ্ছাশক্তি।ভিসা ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আমেরিকান হাই কমিশনের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। বর্তমানে আমেরিকার ভিসা পাওয়া কঠিন হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির কাগজপত্র এবং ব্যাংক সলভেন্সির উপযুক্ত প্রমাণপত্র থাকলে ভিসা পাওয়া সম্ভব।আরো বিস্তারিত জানতে ভিজিট করতে পারেন।( ww w.harvard.edu)।

2

Leave a Reply

Be the First to Comment!

Notify of

wpDiscuz